ভারতে শুরু হতে চলেছে Census 2021 – এর কাজ। কি কি নথি রেডি রাখতে হবে? আগে থেকে জেনে নিন নাহলে…..

2019 সালের সেপ্টেম্বরে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছিলেন যে, 2021 সালের জাতীয় Census বা আদমশুমারিকে একটি মোবাইল ফোন অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে সম্পূর্ণ ডিজিটালভাবে সম্পন্ন করা হবে। 2021 সালের আদমশুমারি মোট 16 টি ভাষায় করা হবে। 2021 সালের ফেব্রুয়ারিতে, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন ভারতের 2021 কেন্দ্রীয় বাজেটে আদমশুমারির জন্য 37.68 বিলিয়ন টাকার অর্থ বরাদ্দ করেছিলেন। ভারতে মহামারীর কারণে এই কাজ অসম্পূর্ণ থাকে।

Advertisement

মহামারীর কারণে বন্ধ থাকা Census 2021 এর কাজ সম্পূর্ণ হতে চলেছে আগামী বছর থেকেই।

স্বাধীনতার পূর্বে ভারতের আদমশুমারি বা জনগননা 1865 সাল থেকে 1941 সাল পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে করা হত। আদমশুমারিগুলি প্রাথমিকভাবে প্রশাসনের সাথে সম্পর্কিত ছিল এবং তারা যে যে বিষয়ে কাজ করতো তাতে অসংখ্য সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছিল। যার মধ্যে রয়েছে গ্রামগুলিতে বাড়ির সংখ্যার অনুপস্থিতি থেকে শুরু করে বিভিন্ন কারণে সাংস্কৃতিক আপত্তি থেকে সৃষ্ট নানা সমস্যা।

সমাজবিজ্ঞানী মাইকেল মান তখনকার আদমশুমারিকে ব্রিটিশ ভারতের জনগণের সামাজিক বাস্তবতার চেয়ে ব্রিটিশদের প্রশাসনিক চাহিদার জন্য বেশি প্রয়োজনীয় বলে অভিহিত করেছেন। ব্রিটিশ রাজত্বের সময় মূল্য ব্যবস্থা এবং পশ্চিমের সমাজ থেকে ভারতীয় সমাজের প্রকৃতির পার্থক্যগুলি সংগ্রহ করা ডেটাতে “জাতি”, “ধর্ম”, “পেশা” এবং “বয়স” ইত্যাদি তথ্য গুলিকে অন্তর্ভুক্ত করার দিকে নজর দিয়েছিল। যেহেতু সেই তথ্যের সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ ভারতীয় সমাজের কাঠামো এবং রাজনৈতিক গতিপথের উপর যথেষ্ট প্রভাব ফেলেছিল।

Ads

ভারতের 2021 সালের Census – জনগননা বা আদমশুমারি করার কথা ছিল, তবে মহামারীর কারণে সেই প্রোগ্রাম সাময়িক স্থগিত করে দেওয়া হয়েছিল। তবে এবারে এই কাজ আগামী বছর অর্থাৎ, 2023 সাল থেকে আবার শুরু করা হবে বলে জানা যাচ্ছে। এটি হল ভারতের 16 তম ভারতীয় আদমশুমারি, 2023 সালে করা হবে।

Advertisement

এপ্রিল 2019 – এ, একটি ডেটা ব্যবহারকারীদের নিয়ে একটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল এবং ঘোষণা করা হয়েছিল যে 3,30,000 গণনাকারীদের তালিকাভুক্ত করা হবে এবং তাদের তাদের মাধ্যমে এই কাজ সম্পন্ন করা হবে। নিজস্ব স্মার্ট ফোন, যদিও একটি কাগজের বিকল্পও পাওয়া যাবে, যা গণনাকারীদের তখন ইলেকট্রনিকভাবে জমা দিতে হবে।

Advertisement

এক্ষেত্রে Census – নিয়ে আরও ঘোষণা করা হয়েছিল যে, 2020 সালের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে বাড়ির তালিকা করা হবে, 2021 সালের ফেব্রুয়ারিতেই প্রকৃত গণনার কাজ এবং মার্চ মাসে একটি সংশোধন রাউন্ডের সাথে শেষ করা হবে। রেফারেন্স তারিখটি বেশিরভাগ রাজ্যে 1 মার্চ 2021 এবং জম্মু ও কাশ্মীর এবং হিমাচল প্রদেশ এবং উত্তরাখণ্ডের কিছু অঞ্চলের জন্য 1 অক্টোবর 2020 হবে বলে জানানো হয়েছিল।

Ads

2019 সালের সেপ্টেম্বরে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছিলেন যে, 2021 সালের জাতীয় Census বা আদমশুমারিকে একটি মোবাইল ফোন অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে সম্পূর্ণ ডিজিটালভাবে সম্পন্ন করা হবে Census. 2021 সালের আদমশুমারি মোট 16 টি ভাষায় করা হবে। 2021 সালের ফেব্রুয়ারিতে, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন ভারতের 2021 কেন্দ্রীয় বাজেটে Census – তথা আদমশুমারির জন্য 37.68 বিলিয়ন টাকার অর্থ বরাদ্দ করেছিলেন। ভারতে মহামারীর কারণে এই কাজ অসম্পূর্ণ থাকে।

প্রতি 10 বছর পরপর ভারতে এই Census এর কাজ হয়ে থাকে। এর মাধ্যমে ভারতের প্রত্যেক নাগরিককে দিতে হয় তথ্য। এক্ষেত্রে 31 টি তথ্য সম্বলিত একটি ফর্ম পূরণ করাতে আসেন সরকারি আধিকারিক। তাকে সঠিক তথ্য দিয়ে সাহায্য করার দায়িত্ব প্রত্যেক পরিবারের। এক্ষেত্রে পরিবার ভিত্তিক তথ্য সংগ্রহ করা হয়ে থাকে। আসুন জেনে নেওয়া যাক, কি সেই 31 টি তথ্য?

এক্ষেত্রে Census – গননায় প্রথমেই দিতে হয় বাড়ির নম্বর এবং ঠিকানা। এর পড়ে থাকে গৃহের বিবরণ অর্থাৎ সেই ঘর কাঁচা না পাকা, মেঝের প্রকৃতি, ছাদ ইতাদি। এরপর দিতে হয় বাড়ির হোল্ডিং নাম্বার। বাড়িতে মোট কতজন লোক বসবাস করেন, তার বিস্তারিত বিবরণ দিতে হবে Census – আধিকারিককে। পরিবার প্রধানের লিঙ্গ, বয়স এবং যাবতীয় তথ্য দিতে হবে। এছাড়া তিনি কাস্ট বা জাতির প্রকৃতি উল্লেখ করতে হয়।

এরপর বাড়িটির প্রকৃতি উল্লেখ করতে হয়। বাড়িতে কতগুলি রুম আছে, সেই বিষয়ে আনা হবে আধিকারিকদের। বাড়িতে কতজন বিবাহিত বা অবিবাহিত আছেন, তার উল্লেখ করতে হবে। পানিয় জলের বিষয়ে জানাতে হবে। বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ ব্যবস্থার স্ট্যাটাস জানাতে হবে। পয়নিস্কাসন ব্যবস্থার প্রকৃতি কিরূপ, তা অবগত করাতে হবে। স্নানাগার কাঁচা না পাকা, তা জানাতে হবে।

LPG গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারে নতুন নিয়মে বেশ সমস্যায় গ্রাহকেরা। বিস্তারিত দেখুন।

এছাড়া রান্নার জন্য কি ব্যবহার করা হচ্ছে? বাড়িতে রেডিও, টিভি, ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবস্থা আছে কিনা তা জানাতে হবে Census – আধিকারিককে। ল্যাপটপ, কম্পিউটার, তেলিফন, মোবাইল, স্মার্টফোন আছে কিনা তা জানাতে হবে। দুই চাকা বা চার চাকার যানবাহন আছে কিনা তা জানাতে হবে। এছাড়াও প্রধান খাদ্য হিসেবে কি ব্যবহৃত হয়, তাও জানাতে হবে। এছাড়াও আরও নতুন কোন তথ্যের কলাম ফর্মে যুক্ত হলে তাও জানাতে হবে আধিকারিকদের।

ভারতের 2021 সালের জনগননা বা আদমশুমারি করার কথা ছিল, তবে মহামারীর কারণে সেই প্রোগ্রাম সাময়িক স্থগিত করে দেওয়া হয়েছিল। তবে এবারে এই কাজ আগামী বছর অর্থাৎ, 2023 সাল থেকে আবার শুরু করা হবে বলে জানা যাচ্ছে। এটি হল ভারতের 16 তম ভারতীয় আদমশুমারি, 2023 সালে করা হবে।

এপ্রিল 2019 – এ, একটি ডেটা ব্যবহারকারীদের নিয়ে Census – এর একটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল এবং ঘোষণা করা হয়েছিল যে 3,30,000 গণনাকারীদের তালিকাভুক্ত করা হবে এবং তাদের তাদের মাধ্যমে এই কাজ সম্পন্ন করা হবে। নিজস্ব স্মার্ট ফোন, যদিও একটি কাগজের বিকল্পও পাওয়া যাবে, যা গণনাকারীদের তখন ইলেকট্রনিকভাবে জমা দিতে হবে।

রেশন কার্ডে মাত্র 100 টাকাতেই মিলবে সারামাসের মুদিখানা বাজার, চাল, ডাল, তেল, নুন সব দেবে সরকার।

এক্ষেত্রে Census নিয়ে আরও ঘোষণা করা হয়েছিল যে, 2020 সালের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে বাড়ির তালিকা করা হবে, 2021 সালের ফেব্রুয়ারিতেই প্রকৃত গণনার কাজ এবং মার্চ মাসে একটি সংশোধন রাউন্ডের সাথে শেষ করা হবে। রেফারেন্স তারিখটি বেশিরভাগ রাজ্যে 1 মার্চ 2021 এবং জম্মু ও কাশ্মীর এবং হিমাচল প্রদেশ এবং উত্তরাখণ্ডের কিছু অঞ্চলের জন্য 1 অক্টোবর 2020 হবে বলে জানানো হয়েছিল।

2019 সালের সেপ্টেম্বরে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছিলেন যে, 2021 সালের জাতীয় Census বা আদমশুমারিকে একটি মোবাইল ফোন অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে সম্পূর্ণ ডিজিটালভাবে সম্পন্ন করা হবে। 2021 সালের আদমশুমারি মোট 16 টি ভাষায় করা হবে। 2021 সালের ফেব্রুয়ারিতে, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন ভারতের 2021 কেন্দ্রীয় বাজেটে আদমশুমারির জন্য 37.68 বিলিয়ন টাকার অর্থ বরাদ্দ করেছিলেন। ভারতে মহামারীর কারণে এই কাজ অসম্পূর্ণ থাকে।

Census এর তথ্য অনুসারে সকলকেই তথ্যগুলি আপডেট করে রাখা থাকলে পড়ে আর সমস্যা হবে না। পরবর্তী প্রতিবেদনে তুলে ধরা হবে, ভারতের ক্ষেত্রে হতে যাওয়া এক বিরল ঘটনা যার কথা অনেকেই জানেন। কিন্তু কবে থেকে আর কিভাবে তা বাস্তবায়িত হবে তা জানতে অবশ্যই নজর রাখতে হবে ওয়েবসাইটে। আপনার কোন মন্তব্য বা জিজ্ঞাস্য থাকলে অবশ্যই জানা কমেন্ট বক্সে। ধন্যবাদ।
Written by Mukta Barai.

Leave a Comment

Advertisement