Education Policy – স্নাতক 4 বছরে, মাধ্যমিক হবে সেমিস্টারে। পশ্চিমবঙ্গে শিক্ষায় আমূল বদল, বিস্তারিত দেখুন।

পশ্চিমবঙ্গে নতুন কেন্দ্রীয় শিক্ষানীতি বা Central Govt Education Policy চালু হবার পথে। কেন্দ্রের এই Education Policy অনুসারে Education System সংক্রান্ত বেশ কিছু বিষয়ে আনা হচ্ছে আমূল পরিবর্তন। বেশ অনেক কিছু নতুন নতুন বিষয় সংযুক্ত করা হচ্ছে এই নিয়মে। আবার পুরাতন অনেক বিষয়ে এক্কেবারে ঝেড়ে ফেলা হচ্ছে। প্রাথমিক স্তরের পড়াশোনা থেকে শুরু করে স্নাতক সহ স্নাতক পরবর্তী পড়াশোনা, সবেতেই নজরে আসতে চলেছে বেশ কিছু পরিবর্তন। বিস্তারিত আলোচনায় সবটা অল্প অল্প করে জেনে নেওয়া যাক।

Advertisement

কেন্দ্রের শিক্ষানীতি তথা Education Policy চালু রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থায়।

২০২০ সালে Education Policy সংক্রান্ত নিয়মে বড়ো পরিবর্তন এনেছিল ইউনিভার্সিটি গ্রান্ট কমিশন বা UCG। শিক্ষানীতিতে শেষ বদল এসেছিল ১৯৯২ সালে। তারপর দীর্ঘ ৩৩ বছর পর স্নাতক স্তরের শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে একগুচ্ছ নতুন শিক্ষনীতির কথা ঘোষণা করা হয়েছে UGC এর তরফে। মোদী সরকারের অষ্টম বর্ষপূর্তিতে Education Policy সংক্রান্ত এই বদল গুলি আনা হয়েছিল।

এখানে Education Policy হিসেবে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল-
১. UGC, AICTE- এর মতো বেশ কয়েকটি উচ্চশিক্ষার নিয়ামক সংস্থা আছে। সেসব তুলে দিয়ে একটিমাত্র নিয়ামক সংস্থা করতে হবে।
২. স্নাতক স্তরের কোর্সের মেয়াদ ৩ বছর থেকে করা হবে ৪ বছর।

Ads

৩. পাঁচ বছর ইন্টিগ্রেটেড পদ্ধতিতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর একসাথে করতে পারবেন পড়ুয়ারা।
৪. স্নাতকোত্তর স্তরের কোর্স গুলির মেয়াদ করা হবে ১ অথবা ২ বছর।
৫. এম ফিল কোর্সটি তুলে দেওয়া হয়েছে নতুন শিক্ষানীতিতে।
৬. কলেজে স্নাতক অথবা স্নাতকোত্তর স্তরের কোর্সে ভর্তির জন্য প্রয়োজনীয় প্রবেশিকা পরীক্ষার যাবতীয় দায়িত্ব ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সির বা NTA এর হাতে থাকবে।

Advertisement

৭. নতুন শিক্ষানীতিতে কলেজগুলিকে প্রশাসনিক এবং অর্থনৈতিক স্বশাসনের ক্ষমতা দেওয়া হচ্ছে। এর ফলে হয়ত বেসরকারিকরণের হার বাড়বে কলেজগুলিতে।
৮.  একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণীতে আর বিভাগগত তফাত অর্থাৎ বিজ্ঞান, কলা, বাণিজ্য বিভাগের তফাৎ থাকবে না। 

Advertisement

৯. নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত Education Policy অনুসারে মোট ৮ টি সেমিস্টার নেওয়া হবে স্কুলগুলিতে।
১০. চালু করা হচ্ছে মাল্টি ডিসিপ্লিনারি এডুকেশন মোড। এর ফলে পড়ুয়ারা নিজেদের ইচ্ছেমত বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করতে পারে, যেমন প্রফেশনাল কোর্সের সাথে ল্যাঙ্গুয়েজ বিষয়গুলো পড়তে পারবেন ইচ্ছুক পড়ুয়ারা।

Ads

আধার কার্ডে নিজের নাম, ঠিকানা, মোবাইল নম্বর, ছবি পাল্টাতে চান! এভাবে করলে কোন টাকা লাগবে না। পদ্ধতি দেখুন।

১১. স্কুল লেভেলে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ুয়ারা যাতে আঞ্চলিক ভাষা শিখতে পারে, তাতে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।
১২. স্কুলের শিক্ষার ক্ষেত্রে ত্রি – ভাষা নীতি চালু করা হবে। এই পর্যায়ে আঞ্চলিক এবং ইংরেজি ভাষার সঙ্গে সংস্কৃতকেও রাখার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

১৩. স্কুল স্তরে শিক্ষার ক্ষেত্রে প্রাক-প্রাথমিকে যোগ হতে চলেছে প্রথম এবং দ্বিতীয় শ্রেণী। প্রাথমিক বিভাগে থাকছে তৃতীয়, চতুর্থ এবং পঞ্চম শ্রেণী। অন্যদিকে ষষ্ঠ, সপ্তম এবং অষ্টম শ্রেণীকে উচ্চ প্রাথমিক বিভাগে রাখা হয়েছে। UGC এর এই নতুন শিক্ষা সংক্রান্ত নিয়মগুলিকে রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে চালু করার আর্জি জানিয়ে রাজ্যের উচ্চশিক্ষা দফতরের তরফে সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টারদের চিঠি দেওয়া হয়েছে।

জিও এর নতুন রিচার্জ প্লানের তালিকা প্রকাশ, সস্তা ও দামী সমস্ত প্লানের লিস্ট।

চিঠিতে লেখা হয়েছে, UGC এর এই নতুন শিক্ষা সংক্রান্ত সার্কুলার বিবেচনা করে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে চালু করা হোক। এই নতুন সার্কুলার চালু হলে পড়ুয়ারা এবার থেকে ৩ বছরের জায়গায় ৪ বছরের স্নাতক কোর্স করবেন। ৪ বছরের স্নাতক কোর্সের ক্ষেত্রে প্রাপ্ত নম্বর ৭৫ শতাংশের বেশি হলে পড়ুয়ারা সরাসরি PhD তে ভর্তির সুযোগ পাবেন। নয়া শিক্ষানীতি লাগু হলে চূড়ান্ত পরিবর্তন ঘটবে রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থায়।
Written by Parna Banerjee.

Leave a Comment

Advertisement