Dearness Allowance – এই মাস থেকেই বন্ধ হল DA! মাথায় হাত রাজ্য সরকারি কর্মীদের।

বর্তমানে DA নিয়ে সকলেই খুব চিন্তিত। মহার্ঘভাতা বৃদ্ধি নিয়ে রাজ্য সরকারি কর্মীদের আন্দোলন চলে আসছে এখনো পর্যন্ত। একদিকে কেন্দ্রীয় কর্মচারীদের বেতন বাড়ছে হু হু করে, অন্যদিকে রাজ্যের কর্মচারীদের সমস্ত মহার্ঘভাতার টাকা আটকে দেওয়া হয়েছে। তাই নিজেদের প্রাপ্যটুকু মিটিয়ে দেওয়ার দাবিতে বারবার এই সকল কর্মীরা চাপ দিয়েছে সরকারের ওপর। হাজার বার বিভিন্ন মিটিং মিছিল, কর্মবিরতি, এমন কি কোর্টে কেসও করা হয়েছে এই নিয়ে।

Advertisement

DA News Update In West Bengal.

বিভিন্ন সরকারি কর্মী সংগঠন গুলি একত্রিত হয়েছে এই প্রতিবাদে অংশগ্রহণের জন্য। স্পষ্ট জানানো হয়েছে, যতদিন না সরকার তাদের দাবি মেনে নিচ্ছে ততদিন সরকারের বিরোধিতা করা ছাড়বেন না তারা। কিন্তু তাদের সেই দাবি মেনে প্রাপ্যটুকু তথা বকেয়া ডিএ (Dearness Allowance) মিটিয়ে দেওয়ার বদলে এবারে তাদেরকে শায়েস্তা করার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার (DA News Update). তবে এই সিদ্ধান্ত কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের নয়। অর্থাৎ পশ্চিমবঙ্গেই যে শুধুমাত্র ডিএ আন্দোলন চলছে তা কিন্তু নয়।

দীর্ঘ আন্দোলনের কারণে একপ্রকার বন্ধ করে দেওয়া হলো রাজ্যের একশ্রেণীর কর্মচারীদের চলতি মহার্ঘ ভাতা। ফলে বড়সড় ধাক্কা খেলেন এই মুহূর্তে রাজ্য সরকারি কর্মীরা। কাদের বিরুদ্ধে এই শাস্তি গ্রহণ করা হলো? কেনই বা হঠাৎ এরকম সিদ্ধান্ত নেওয়া হল? জানতে হলে শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

Ads

সূত্রের খবর অনুযায়ী, 1st নভেম্বর 2023 তারিখ থেকেই রাজ্য সরকার কর্তৃক এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করে দেওয়া হয়েছে। সে অনুযায়ী DA News Update এ দেখা যাচ্ছে যে, এ মাস থেকেই মহার্ঘ ভাতা টাকা বন্ধ হয়ে যেতে চলেছে এই সকল রাজ্য সরকারি কর্মীদের। কিন্তু কাদের বন্ধ হলো এই বেতন? জানা গেছে, রাজ্য সরকারের অধীনে বিশেষ কয়েকটি বিভাগে কর্মরত এক শ্রেণীর ব্যক্তিদেরই এক্ষেত্রে বেতন বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

Advertisement

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী দেখা গিয়েছে বন বিভাগে রাজ্য সরকার বেশ কিছু কর্মীকে অস্থায়ীভাবে নিয়োগ করেছিল। প্রধানত কোষাগারে টানাটানি থাকার কারণেই এই সকল কর্মীকে দৈনিক হারে মজুরি সুবিধা দিয়ে নিয়োগ করেছিল সরকার তখন। এরা সকলেই ছিলেন গ্রুপ ডি বিভাগের কর্মী। সংশ্লিষ্ট বিভাগে বিভিন্ন স্থায়ী কর্মীদের সঙ্গে কাজ করতেন এনারাও।

Advertisement

এই মুহুর্তে শিক্ষকদের বেতন বৃদ্ধি সম্ভব নয়, সাফ জানিয়ে দিলো রাজ্য সরকার।

তবে পরবর্তীকালে রাজ্য সরকার যখন সেই সমস্ত স্থায়ী কর্মচারীদের জন্য মহার্ঘভাতা বৃদ্ধির নিয়ম জারি করে, তখন সেই সঙ্গে বেতন বৃদ্ধি ঘটে সেই সমস্ত অস্থায়ী কর্মীদেরও। যার দরুন তারা উভয়েই সমান বেতন লাভ করছিলেন। কিন্তু এখন রাজ্য সরকার চিন্তা করে দেখেছে যে স্থায়ী এবং অস্থায়ী কর্মীদের বেতন কখনো এক হতে পারে না। তাই সিদ্ধান্ত বদল করেছে তারা বর্তমানে (DA News Update).

Ads
Bank Holidays (ব্যাঙ্ক ছুটির তালিকা)

সেই অনুযায়ী নভেম্বর মাস থেকে আর উত্তরাখণ্ডের অস্থায়ী কর্মীদের মহার্ঘ ভাতার টাকা আর দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছে সরকার কর্তৃপক্ষ। সরকারের তরফে জানানো হয়েছে যে, বন বিভাগে এমন 611 জন মোট অস্থায়ী কর্মী রয়েছেন যাঁরা দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে কাজ করেন। এই সকল কর্মীরা এখন থেকে বঞ্চিত হবেন বর্ধিত মহার্ঘ ভাতার সুবিধা থেকে।

শুধুমাত্র মাধ্যমিক পাশ যোগ্যতায় 1832 শূন্যপদে ভারতীয় রেলে কর্মী নিয়োগ, এইভাবে আবেদন করুন।

তবে যাই হোক অস্থায়ী কর্মীদের ডিএ বন্ধ হলেও স্থায়ী কর্মীরা বর্তমানে বেতন বৃদ্ধির আশায় রয়েছেন। যেহেতু কেন্দ্রীয় সরকার তার কর্মচারীদের জন্য অক্টোবর মাস থেকে ডিএ 4 শতাংশ বাড়িয়েছে, তাই উত্তরাখণ্ডের রাজ্য সরকারি কর্মীরা ও এখন আশা করছেন তাদের মহার্ঘ ভাতা হয়তো বাড়তে পারে। কিন্তু সরকারি তরফে এখনো এরকম কোনো খবর ঘোষণা করা হয়নি (DA News Update).
Written by Nabadip Saha.

সম্পাদক

Leave a Comment

Advertisement