রাজ্য সরকারি কর্মী (West Bengal Employees)

সরকারি কর্মীদের স্বাস্থ্যের দিকে নজর দিতে আসছে নয়া প্রযুক্তি, বিরাট সিদ্ধান্ত নবান্নের।
যত দিন যাচ্ছে, ততই লাইফস্টাইল ডিজিজ বাড়ছে। এই মুহূর্তে অধিকাংশ মানুষই এই ধরনের কোনো না কোনো রোগে ভুগছেন। ডায়াবেটিস, হাইপারটেনশন, কোলেস্টেরল, হার্ট ডিজিস থেকে শুরু করে একাধিক সমস্যা যেন মানুষকে চেপে ধরেছে। তার পিছনে চিকিৎসা বিজ্ঞানের কথা অনুযায়ী, অধিকাংশ মানুষের জীবনযাত্রার জন্যই এই ধরনের সমস্যা তৈরি হচ্ছে মানবশরীরে। খুঁজে পাওয়া যাবে না এমন মানুষ, যার অন্তত এই মুহূর্তে হাই প্রেসার, ডায়াবেটিস, কোলেস্টরেলের সমস্যা নেই।

Advertisement

ফলে নিয়মিত যেমন একদিকে ডাক্তারি চেকআপের মধ্যে থাকতে হচ্ছে, ওষুধ পত্র নিতে হচ্ছে, ঠিক তার সঙ্গে জীবনযাত্রার মানও বদলাতে হচ্ছে। শরীরচর্চার দিকে নজর দিতে হচ্ছে, ডাক্তারি পরামর্শ মেনে চলতে হচ্ছে, আর তার সঙ্গে রয়েছে নিয়মিত রক্ত পরীক্ষা (Blood Test) থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা নিরীক্ষা (Regular Diagnostic Checkup) আর সেটা এবার নিয়মিত মাঝেমধ্যেই করে যেতে হয়। ফলে মানুষের কি চরম সমস্যাজনক পরিস্থিতি তা সহজেই স্পষ্ট বোঝা যায়। এবার সেই দিক থেকে অন্তত রাজ্য সরকারি কর্মীরা বিরাট সুযোগ পেতে চলেছেন। কি সুবিধা পাবেন রাজ্য সরকারি কর্মীরা?

সরকারি কর্মীদের জন্য নতুন সুবিধা চালুঃ

মাত্র ৫ মিনিট সময়ের মধ্যে ব্লাড সুগার, ব্লাড প্রেসার, ইসিজি, লিপিড প্রোফাইল থেকে শুরু করে ডেঙ্গু, করোনা, ম্যালেরিয়া, চিকুনগুনিয়া, টাইফয়েড, ব্লাড গ্রুপ সহ ৫৫ টি পরীক্ষা (Free Diagnostic Test) এক্কেবারে নিখরচায় বিনামূল্যে করতে পারবেন তারা। শুধু কি তাই, রয়েছে BMI, Hemoglobin, Creatinine সহ আরো বহু পরীক্ষার সুযোগ। এখানেই শেষ নয়, থাকছে চোখ পরীক্ষার ব্যবস্থা। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (Artificial Intelligence) এর জেরেই ৫ মিনিটের মধ্যে ৫৫ টি পরীক্ষা একেবারে বিনামূল্যে পেতে চলেছেন রাজ্য সরকারি কর্মীরা। কিন্তু সকল রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা কিন্তু এই সুযোগ-সুবিধা পাবেন না। তাহলে কারা পাবেন এই সুবিধা?

Ads

সরকারি সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে, নবান্ন, স্বাস্থ্য ভবন, বিকাশ ভবন এবং কলকাতা পুরসভার সদর দপ্তর এর সরকারি কর্মীরাই সরকারের এই সুবিধা পেতে চলেছেন। রাজ্য সরকারের ৫টি গুরুত্বপূর্ণ ভবনের এই কর্মচারীরা এবার থেকে রাজ্য সরকার এবং বেঙ্গল কেমিক্যাল এর যৌথ উদ্যোগে রোগ নির্ণয় এবং রক্ত পরীক্ষার এই সুবিধা নিখরচায় পাচ্ছেন। এর জন্য রোগ নির্ণয় এবং রক্ত পরীক্ষার হাইটেক যন্ত্র ক্লাউড ক্লিনিক হেলথ এটিএম (Cloud Clinic Health ATM) নিয়ে আসা হচ্ছে। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স যুক্ত হেলথ এটিএম এর বহু সুবিধা রয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

Advertisement

সেই সমস্ত সুবিধা গুলি কি কি:
প্রথমত,
এখানে প্রবেশ করলে নিজের সমস্ত তথ্য জানালে ইনফরমেশন রেকর্ড হয়ে থাকবে ক্লাউডে। সেই রোগী যতবারই পরীক্ষা করাবেন ততবার আগের রিপোর্টের সঙ্গে নতুন রিপোর্টের তুলনা করার সুযোগ পাওয়া যাবে।
দ্বিতীয়তঃ, পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্টের সঙ্গে কি ধরনের খাওয়া-দাওয়া, শরীর চর্চা করলে, কিভাবে জীবন যাপন করলে, সেই ব্যক্তি নীরোগ এবং সুস্থ থাকবেন, সেটাও এই মেশিন জানিয়ে দেবে।
তৃতীয়ত, সমস্ত রিপোর্টিং ইমেইল এবং হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানোর ব্যবস্থা থাকছে।
চতুর্থত, এই মেশিন থেকে QR Code লাগানো ব্যক্তিগত হেলথ কার্ড (Health Card) বেরিয়ে আসবে। তার পাশাপাশি প্রয়োজন হলে ডাক্তারের সঙ্গে অডিও বা ভিডিও কলে কথা বলার সুযোগ থাকছে এই মেশিনের মাধ্যমে।

Advertisement

আধার কার্ড নিয়ে নয়া নির্দেশ, এই কাজ না করলে বতিল হবে কার্ড, প্রকল্পের টাকা পাবেন না।

ইতিমধ্যেই জানা গিয়েছে, রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা হিন্দুস্থান অ্যান্টিবায়োটিক লিমিটেডের তৈরি হেলথ এটিএমগুলি বেঙ্গল কেমিক্যালের ডালহৌসির অফিসে ইতিমধ্যেই চলে এসেছে। হ‍্যাল এই যন্ত্রগুলি নিখরচায় পাঠাচ্ছে। প্রায় ৭৫ হাজার টাকার অ্যান্টিজেন, যা রক্ত পরীক্ষা করার জন্য জরুরী তাও পাঠাচ্ছে তারা। তারপর রাজ্য সরকারের তরফে যাবতীয় টেস্টের খরচ বহন করা হবে।

Ads

পশ্চিমবঙ্গের ছাত্রছাত্রীদের জন্য সেরা 5 স্কলারশিপ। আবেদন করলেই পাবেন পড়াশোনার খরচ।

আর এর ফলে উপকৃত হতে চলেছেন কয়েক হাজার সরকারি কর্মী এবং পুরসভার কর্মী, অফিসাররা। এই পরীক্ষাগুলি বেসরকারি কোনো ল্যাবরেটরী থেকে করতে হলে প্রচুর টাকা খরচ করতে হয়। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে রাজ্য সরকারের নির্দিষ্ট এই কর্মচারীদের জন্য এই সুযোগ দেওয়ায় তারা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এই সুবিধা পেতে চলেছেন।
Written by Shatadal.

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *