LIC Jeevan Shanti Plan – মাসে মাসে অল্প কিছু টাকা জমিয়ে, প্রতিমাসে 12,000 টাকা পাবেন সারাজীবন।

ভারতীয় জীবন বীমা নিগম বা LIC ভারতের সবচেয়ে বড় বীমা সংস্থা। LIC এর অনেক পলিসি বা প্ল্যান গুলির মধ্যে LIC Jeevan Shanti Plan অন্যতম। এইখানে বিনিয়োগে করলে ঝুঁকি নেই বললেই চলে অর্থাৎ নিশ্চিত রিটার্ন পেয়ে যাবেন। ভবিষ্যৎ নিয়ে আমরা সকলেই চিন্তা করি। কারণ ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত না থাকলে আপদ বিপদে আমাদের কোনো ভরসার স্থল থাকে না। তাই নিজেদের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করতে আমরা অনেকেই বিভিন্ন পলিসিতে অর্থ বিনিয়োগ করে থাকি। এব্যাপারে আমরা সবসময়েই সেরা প্ল্যানটিই খুঁজি বিনিয়োগের জন্য, যেখানে আমাদের লাভ হবে বেশি।

Advertisement

LIC Jeevan Shanti Plan

আপনি যদি এমনই একটি প্ল্যানের খোঁজে থাকেন তাহলে এলআইসি আপনার জন্য নিয়ে এল জীবন শান্তি স্কিম। জীবন বীমা কর্পোরেশন (এলআইসি) এর এই একটি প্রকল্পে একবার বিনিয়োগ করলে আপনি সারা জীবনের জন্য একটি ভাল পেনশন পেতে পারেন। LIC Jeevan Shanti Plan আপনার মাসিক আয় বাড়াতে পারে এবং মাসিক নির্দিষ্ট আয়ের ব্যবস্থা করতে আপনাকে সাহায্য করবে।

LIC Jeevan Shanti Plan কি?
এলআইসি জীবন শান্তি প্ল্যান হল একটি একক প্রিমিয়াম নন-লিঙ্কড প্ল্যান। এখানে পলিসি ধারকের কাছে দুটি বিকল্প থাকে। যেমন এই প্ল্যানটি অফলাইন এবং অনলাইন উভয় ভাবেই কেনা যেতে পারে। পলিসি হোল্ডার যখন পেনশন নিতে চান, তখন আরও সম্ভাবনা থাকে। এখানে আপনি মাসিক, ত্রৈমাসিক, অর্ধ বার্ষিক এবং বার্ষিক হারে সুবিধা উপভোগ করতে পারেন। যদি আপনি এই প্রকল্পে অর্থ বিনিয়োগ করেন তাহলে ৬.৮১ শতাংশ থেকে সর্বাধিক ১৪.৬২ শতাংশ পর্যন্ত সুদ পেতে পারেন।

Ads

আপনি এই স্কিম থেকে বার্ষিক ন্যূনতম 12,000 টাকা পেনশন পাবেন। এই প্রোগ্রামে বিনিয়োগের কোনও ঊর্ধ্বসীমা নেই। তবে নিম্নসীমা রয়েছে। এলআইসি র এই নতুন জীবন শান্তি প্রকল্পের ন্যূনতম বিনিয়োগ 1.5 লাখ টাকা। যে কোনো ব্যক্তি যার আয় প্রতি মাসে 11,000 টাকার বেশি তাকে ন্যূনতম 10 লাখ টাকা বিনিয়োগ জীবন বীমা কোম্পানির এই প্রকল্পে করতে হবে। তবে এই পলিসিতে বিনিয়োগ করতে গেলে আপনাকে অবশ্যই ৩০ বছর থেকে ৭৯ বছরের মধ্যে বয়সী হতে হবে।

Advertisement

Fixed Deposit এ 10% সুদ ঘোষণা। এইভাবে টাকা রাখলে, ঝড়ের গতিতে বাড়বে টাকা।

LIC Jeevan Shanti Plan এর সুবিধাগুলি হল:

Advertisement
  • এককালীন বিনিয়োগ করুন এবং সারা জীবনের জন্য নিশ্চিত আয় পান।
  • এই পলিসিতে বিলম্বিত সময়ের মধ্যে সংযোজন নিশ্চিত করা হয়।
  • এই বিমাটি ব্যক্তিগত ভিত্তিতে বা পিতামাতা, সন্তান, নাতি-নাতনি, পত্নী বা ভাইবোনের সাথে যৌথভাবে ক্রয় করা যেতে পারে।
  • প্রথম পলিসি বছরের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরে, একটি ঋণ সুবিধাও পাওয়া যেতে পারে।

কোন প্রকল্পে বিনিয়োগে কত দিনে টাকা ডবল হবে? বর্তমানে সর্বোচ্চ সুদ কিভাবে পাবেন?

বিমা বাতিল করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে: যেহেতু অ্যানুইটি বিকল্পে ক্রয়ের পরিমাণ ফেরত অন্তর্ভুক্ত রয়েছে, তাই মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখ থেকে তিন মাস পর যে কোনো সময় বীমা বাতিল করা যেতে পারে।

Ads

নো কস্ট লুক পিরিয়ড
পলিসিধারী পলিসির “নিয়ম ও শর্তাবলী” নিয়ে অসন্তুষ্ট হলে 15 দিনের মধ্যে কোম্পানির কাছে বীমা ফেরত দেওয়া যেতে পারে।

আপনার পরিবারে যদি কোন প্রতিবন্ধী বা অসমর্থ ব্যক্তি থাকেন তাহলে তার ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে এখানে বিনিয়োগ করলে, তার অনেক উপকারে আসবে এটি।
Written by Nabadip Saha.

Leave a Comment

Advertisement