মিড ডে মিল

পশ্চিমবঙ্গে সমস্ত স্কুলে মধ্যাহ্নকালীন ভোজন বা মিড ডে মিল প্রকল্প চলে। এই প্রকল্পের নাম পরিবর্তন হয়ে বর্তমানে নাম হয়েছে PM Poshan Scheme. তাহলে সাধারণ মানুষের কাছে কোন নামটি বেশি পরিচিত হবে, এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে না খুঁজতেই রাজ্যে হাজির কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। এই কারণে মিড ডে মিল প্রকল্পে যাতে কোন রকমের ফাঁক না থাকে, সেই কারণে রাজ্যের DI, SI লেভেলে চলছে কঠোর নিয়ম নীতি পালনের অর্ডার।

Advertisement

মিড ডে মিল প্রকল্প নিয়ে সতর্কতা জারি সমস্ত স্কুলে।

2021 সালের সেপ্টেম্বরে, কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা 1.31 মিলিয়ন টাকার আর্থিক খরচের সাথে সরকারী এবং সরকারী সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলগুলিতে একটি গরম রান্না করা খাবার সরবরাহের জন্য প্রধানমন্ত্রী পোষণ শক্তি নির্মাণ বা পিএম পোশান অনুমোদন করেছে। এই স্কিমটি স্কুলে মিড-ডে মিলের জাতীয় প্রোগ্রাম বা মিড-ডে মিল স্কিমকে প্রতিস্থাপন করেছে। এটি পাঁচ বছরের প্রাথমিক সময়ের জন্য চালু করা হয়েছে যা 2021-22 থেকে 2025-26 পর্যন্ত চলবে।

শুধুমাত্র এই রাজ্যই নয়, সারা দেশ জুড়েই চলছে মিড ডে মিল সংক্রান্ত এই বিশেষ তৎপরতা। স্কুলের প্রধান শিক্ষক বা মিড ডে মিলের দায়িত্বে থাকা শিক্ষকদের কোন বিষয়গুলিতে করতে হবে বিশেষ নজরদারি, সে বিষয়গুলি জেনে রাখা অত্যন্ত জরুরি। এই প্রতিবেদনে সে সকল তথ্যই জানাতে আমাদের এই প্রচেষ্টা। প্রয়োজনে দ্রুত এই প্রতিবেদন শেয়ার করে সকলকে বিশেষভাবে অবগত হতে সাহায্য করুন।

Ads

ইতিমধ্যেই শহর কোলকাতায় চলে এসেছে কেন্দ্রের টিম। কোলকাতা সহ আশেপাশের এলাকার স্কুল গুলিতে চলছে পরিদর্শন। মিড ডে মিল প্রকল্পের বাস্তবায়ন ও গতি প্রকৃতি দেখতে বেরিয়ে পড়ার আগেই রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর বিকাশ ভবনে যান। সেই অফিসের আধিকারিকদের সাথে করেন বৈঠক। প্রতিনিধিদলের প্রধান অনুরাধা গুপ্তা জানিয়েছেন, যত বেশি সম্ভব জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে ও গ্রামের স্কুলে বেশি করে পরিদর্শনে যাবেন তাঁরা। আর এদিন পরিদর্শনের পর কি কি জানা গেল, জেনে নিন।

Advertisement

মিড ডে মিল সংক্রান্ত পরিদর্শনের কাজ চলবে সারা রাজ্য জুড়ে। এর সময়সীমা 30 সে জানুয়ারি থেকে 6 ফেব্রুয়ারি, 2023 তারিখ পর্যন্ত। কি কি রেডি রাখবেন? প্রথমেই যেটি বিশেষ গুরুত্ব দিতে হচ্ছে তা হলো খাদ্য তালিকা পরিদর্শন। স্কুলের যেকোন দেওয়ালে পরিষ্কারভাবে মিড ডে মিল এর সাপ্তাহিক খাদ্যতালিকা টানাতে হবে। ইতিমধ্যেই এই কদিন প্রত্যেক স্কুলে 100% ছাত্র, শিক্ষক ও কুক দের উপস্থিতির নির্দেশ দিয়েছেন একাধিক জেলার DI (জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক) ও SI (অবর বিদ্যালয় পরিদর্শক).

Advertisement

সাপ্তাহিক রাশিফল অনুযায়ী ফেব্রুয়ারি, 2023 সালের প্রথম সপ্তাহের ভাগ্যলেখা দেখে নিন।

এছাড়াও মিড ডে মিল এর জন্য বরাদ্দ হওয়া তহবিল, সমস্ত হিসাব বহি, খাদ্যশস্য সরবরাহ, খাদ্যসুরক্ষার গাইডলাইনে উদ্যোগী জেলা, ব্লক ও স্কুলস্তরের বিজ্ঞপ্তি, কুক এবং হেল্পারদের পেমেন্ট ও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, খাদ্যশস্যের সংরক্ষণ, প্রকল্পে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ভূমিকা, মিড ডে মিলের টেস্টিং রেজিস্টারে শিক্ষক, অভিভাবক, রাধুনীদের অংশগ্রহণ, প্রতিমাসের শিক্ষক অবিভাবক মিটিং, স্কুলের সার্বিক পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা সহ এই সমস্ত নথিপত্র প্রস্তুত রাখতে বলা হয়েছে।

Ads

মিড ডে মিল এর হিসেবে স্কুলের সাথে যুক্ত সমস্ত পোর্টালের মধ্যে মিল আছে কিনা, সেই বিষয়েও বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। কারণ, এমন অনেক স্কুল আছে যেখানে পোর্টালের মধ্যে পড়ুয়াদের সংখ্যা প্রার্থ্যকি থাকার ফলে মিড ডে মিলের SMS পাঠাতে গিয়েও হয়েছে নানা সমস্যা। সেই সমস্যা সমাধানে সার্বিকভাবে উদ্যোগী হতে হবে। এছাড়া বিগত এক বছরে স্কুল পরিদর্শনের সমস্ত বিষয়গুলি ভিজিটর রেজিস্টারে উল্লেখ আছে কিনা, তা নজরে রাখা জরুরি।

বিনামূল্যে মোবাইল ফোন ও 1 বছরের ভ্যালিডিটি দিচ্ছে Jio, কিভাবে পাবেন জেনে নিন।

স্কুলে পানীয় জলের উৎস, টয়লেট, ফিল্টার, কিচেন গার্ডেন, রান্নার খরচের হিসেব, সমস্ত খাতার সম্পূর্ণ হিসেব, চালের হিসেব, কিসের সাহায্যে রান্না হচ্ছে, আর্থিক হিসেব নিকেশ, স্কুল ভবনের ধরণ, কিচেনে অগ্নি নির্বাপক আছে কিনা, সাপ্তাহিক পিএম পোষণ মেনু বোর্ড, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার তথ্য পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে দেখতে পারেন তাঁদের পর্যবেক্ষক টিমও। তাই এই সমস্ত বিষয়গুলো রেডি রাখার কথা বলা হয়েছে। নিজেদের দিক থেকে সমস্ত বিষয়গুলি ঠিকঠাক রাখা খুব জরুরি। এমন আরো আপডেট পেতে দেখতে থাকুন। ধন্যবাদ।
Written by Mukta barai.

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *