সরকারি প্রকল্প এর মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর উপহার পৌছাল। তবে সবার জন্য নয়। কারা পাবে, জানুন।

প্রাক -পুজোতে পড়ুয়ারা সরকারি প্রকল্প হিসেবে পাচ্ছে সবুজসাথীর সাইকেল।

মুখ্যমন্ত্রী ক্ষমতায় এসেই রাজ্যবাসীর জন্য নানা ধরণের সরকারি প্রকল্প চালু করার কথা ঘোষণা করেন। এছাড়া তিনি স্কুল পড়ুয়াদের জন্য ঘোষণা করেন সবুজসাথী নামক একটি প্রকল্প। এই প্রকল্পের মাধ্যমে পড়ুয়াদের বসবরে একটি করে নতুন এবং আধুনিক মানের সাইকেল দেওয়া হয়ে থাকে।

Advertisement

পশ্চিমবঙ্গে প্রচুর পড়ুয়া গ্রামেঞ্চলে বসবাস করে। রাজ্য সরকার এবং কেন্দ্র এর উদ্যোগে গড়েও উঠেছে প্রচুর স্কুল। কিন্তু তা সত্ত্বেও যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো না থাকে পড়ুয়াদের বেশ অসুবিধায় পড়তে হয় বিদ্যালয়ে যেতে। সেই কথা মাথায় রেখে সরকারি প্রকল্প এর আওতায় পড়ুয়াদের জন্য চালু হয় সবুজসাথি প্রকল্প।

এছাড়াও পশ্চিমবঙ্গে রাজনৈতিক পালা বদলের পরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার বিশেষ ভাবে নজর দিয়েছিল রাজ্যের মহিলাদের উন্নতি ও ক্ষমতায়নের দিকে। সেই লক্ষ্যপূরণেই তিনি সরকারি প্রকল্প হিসেবে চালু করেছেন কন্যাশ্রী প্রকল্প, লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প, সবুজসাথী প্রকল্প, বিধবা ভাতা, রূপশ্রী প্রকল্প ইত্যাদি।

Ads

কেন্দ্রীয় সরকারের একাধিক রিপোর্টে এই সমস্ত প্রকল্প বারেবারে উঠে এসেছে। এমনকী, বিশ্বের দরবারেও পশ্চিমবঙ্গের এই সকল সরকারি প্রকল্প গুলি স্বীকৃতি পেয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের নারীদের জীবনে চরম অনিশ্চয়তার মুখ থেকে অনেকটাই বেরিয়ে আসতে পেরেছেন।

Advertisement

নবান্ন সূত্রে খবর, উন্নয়নের এই ধারাকে চালু রাখতে চলতি অর্থবর্ষে রাজ্যের ১২ লক্ষ পড়ুয়াকে সরকারি প্রকল্প এর মাধ্যমে সবুজসাথী প্রকল্পে সাইকেল তুলে দিচ্ছে রাজ্য সরকার। কয়েক মাস আগেই রাজ্যের সকল মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক স্কুলগুলিকে হিসাব পাঠাতে বলা হয়েছিল। সেই হিসেব মতোই রাজ্য সরকার এর তরফে নবম এবং দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের সাইকেল দেওয়া হবে। 

Advertisement

যাতে নবম এবং দ্বাদশের পড়ুয়াদের কোন জেলায় কত সাইকেল প্রয়োজন, তা ঠিক করতে কোন অসুবিধা না হয় সেই জন্য এবারে স্কুল ধরে ধরে নাম নথিভুক্ত করা হয়েছে। ১৭ই সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলেছে এই কাজ। এরপরে হিসেবে দেখা যায় যে, রাজ্যে নবম এবং দ্বাদশ মিলিয়ে সর্বমোট ১২ লক্ষ পড়ুয়া সরকারি প্রকল্পের মাধ্যমে পাবে সবুজসাথির সাইকেল।

Ads

উচ্চশিক্ষা নিয়ে চিন্তিত? আগস্ট মাসের 5 টি স্কলারশিপে আবেদন করার সুযোগ রয়েছে।

এর মাধ্যমে সাইকেল প্রদানের কাজটি দেখভাল করছে রাজ্যের অনগ্রসর শ্রেণি কল্যাণ দফতর। সেই দফতর একটি তালিকা সংগ্রহ করে ইতিমধ্যে তা নবান্নে পাঠিয়েছে। এরপর সাইকেল উৎপাদক সংস্থাকে টেন্ডারের মাধ্যমে বেছে নেওয়া হয়। তারপর শুরু হবে সাইকেল বিলির পালা।

নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজ্যের উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং মুর্শিদাবাদ জেলায় ১ লক্ষের বেশি সাইকেল দেওয়া হবে। ২০১৫-১৬ সাল থেকে শুরু হওয়া এই প্রকল্পের আওতায় এখনও পর্যন্ত ১ কোটির বেশি সাইকেল দেওয়া হয়েছে রাজ্যের পড়ুয়াদের।

এই সরকারি স্কলারশিপে আবেদন করলেই পাবেন 20,000 টাকা

সবচেয়ে বেশি সাইকেল পেয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার পড়ুয়ারা। তারপরই রয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা। গত বছরে মহামারির সময়কালের মধ্যে সপ্তম দফায় সব থেকে কম সাইকেল বিলি হয়েছে। কারণ, কোভিড ও লকডাউনের জেরে বিদ্যালয়ের স্বাভাবিক পঠন পাঠন বন্ধ থাকায় লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়নি অনেক জেলায়।

এবারে যাতে সুষ্ঠুভাবে বিষয়টি চলে তার দিকে সজাগ দৃষ্টি রয়েছে দপ্তরের। তবে পুজোর আগে পড়ুয়ারা এই সরকারি প্রকল্পে বেশ খুশি। এমন আরো খবর পেতে ওয়েবসাইটে নজর রাখুন। ধন্যবাদ। Written by Mukta Barai.

সম্পাদক

Leave a Comment

Advertisement