Primary TET Court Case

Primary TET Court Case : পর্ষদ সভাপতি মানিক ভট্টাচার্যকে সরানোর নির্দেশ হাইকোর্টের।

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের (Primary TET Court Case) সভাপতি মানিক ভট্টাচার্যকে অপসারণের নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। এদিন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ (Primary TET) সংক্রান্ত মামলার শুনানি ছিল।

Advertisement

সেখানেই কলকাতা হাইকোর্ট (Primary TET Court Case Kolkata High court) মানিক ভট্টাচার্যকে অপসারণের নির্দেশ দেয়। প্রথমেই 269 জন শিক্ষকের চাকরি বাতিল করে দেওয়া হয়েছিল। হাইকোর্টের প্রশ্ন ছিল, 4 জনকে নিয়ে 273 জন চাকরিপ্রার্থীর কিভাবে, কেন এক নম্বর বাড়ানো হল?

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের (WBBPE) পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, এর জন্য একটি বিশেষ কমিটি রয়েছে। সেই বিশেষ কমিটি সমস্ত কিছু খতিয়ে দেখে এক নম্বর বাড়ানোর জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিল। পর্ষদ এই ক্ষেত্রে 2767 জনের আবেদনপত্রের উল্লেখ করেছিল। Primary TET Court Case.

Ads

আরও পড়ুন,  প্রয়োজনে গরমের ছুটি আবার বাড়তে পারে, আজ আদালতে জানিয়ে দিল রাজ্য সরকার।

কলকাতা হাইকোর্টের এই সংক্রান্ত বেশ কিছু প্রশ্ন ছিল:
এই বিশেষ কমিটি কবে নেওয়া হয়েছিল?
বিশেষ কমিটিতে কারা কারা ছিলেন?
বিশেষ কমিটির সিদ্ধান্ত কি ছিল?
Primary TET Court Case

Advertisement

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ এই বিশেষ কমিটির সিদ্ধান্তের প্রাথমিক অনুমোদন দিয়েছিল কিনা?
অনুমোদন দেওয়া থাকলে সেটা কবে দেওয়া হয়েছিল?
অনুমোদন দেওয়ার বৈঠকে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল?
Primary TET Court Case

Advertisement

সিদ্ধান্ত গ্রহণের পরে শিক্ষা দপ্তর এর পক্ষ থেকে একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
Primary TET Court Case.
কলকাতা হাইকোর্ট এই মামলায় এইরকম একাধিক তথ্য চেয়ে পাঠিয়েছিল। কলকাতা হাইকোর্টে যে সমস্ত তথ্য পেশ করা হয়েছে, সেখানে বিচারপতির পর্যবেক্ষণ হল:

Ads

2017 সালের বৈঠকে পুরাতন নথিপত্র স্বাক্ষর বেশ কিছুটা পুরনো এবং মলিন হওয়ার কথা বলে মনে করে হাইকোর্ট। সেখানে 5 বছরের আগের বিভিন্ন বৈঠকের নথিগুলি নতুনের মত উজ্জল, সেটা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বিচারপতি।

আরো পড়ুন, অগ্নিপথ প্রকল্পে 50 হাজার কর্মী নিয়োগ, অনলাইনে আবেদন করতে এখানে Click করুন।

বিচারপতি তাই ফরেনসিক পরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছেন।
জানা গিয়েছে, কলকাতা হাইকোর্টের পক্ষ থেকে যে সমস্ত তথ্য চাওয়া হয়েছিল তার মধ্যে বেশ কিছু তথ্য সমৃদ্ধ নথি না পাওয়ার জন্য পর্ষদ সভাপতি মানিক ভট্টাচার্যকেই দায়ী করা হয়েছে।

মানিক ভট্টাচার্যকে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি পদ থেকে অপসারণ করা হয়েছে।
যতদিন পর্যন্ত নতুন সভাপতি দায়িত্বভার না গ্রহণ করেন, ততদিন পর্যন্ত পর্ষদের সচিব রত্না চক্রবর্তী বাগচী এই দায়িত্ব সামলাবেন।

অবিলম্বে নতুন সভাপতিকে স্কুল শিক্ষা দপ্তর নিযুক্ত করবে।
কলকাতা হাইকোর্টে আগামীকাল দুপুর 2টোর মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্যকে হাজির হতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
Written by Rajib Ghosh.

 প্রাথমিকে আরো 7 হাজার টেট পাশ প্রার্থীর নিয়োগের নির্দেশ, কলকাতা হাইকোর্টের।

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *