Krishak Bandhu

রাজ্যের কৃষকদের চাষাবাদের বিষয়ে রাজ্য সরকারি সিদ্ধান্তে কৃষকদের জন্য আনা হয়েছে কৃষক বন্ধু প্রকল্প তথা Krishak Bandhu Scheme. এমন ধরণের কেন্দ্র সরকারের আরও একটি প্রকল্প আছে যার নাম প্রধান মন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধি প্রকল্প বা PM Kishan. চাষাবাদ সরাসরিভাবে পরিবেশের ওপরে নির্ভরশীল, তাই বিভিন্ন প্রাকৃতিক বিপর্যয় ছাড়াও চাষের নানা সুবিধার জন্য সরকারি সাহাজ্য নিয়ে বিরাট সিদ্ধান্ত সরকারের। আজকের প্রতিবেদনে তা জেনে নেওয়া যাক।

Advertisement

Krishak Bandhu Scheme নিয়ে সিদ্ধান্তে বেশ খুশির ছোঁয়া পেলেন রাজ্যের কৃষকেরা।

কৃষকদের আবেদন জমা নেওয়া হয়েছিল কৃষক বন্ধু প্রকল্পে টাকা দেওয়ার নিমিত্তে। সরকারি সিদ্ধান্ত অনুসারে কৃষকেরা সরকারি সাহায্যের জন্য আবেদন অনুসারে কবে টাকা পাবেন, তা নিয়ে কৃষকদের মধ্যে একটা অনিশ্চয়তা দেখা গিয়েছিল। তবে সেই সকল ধরণের চিন্তাকে দূরে সরাতে সফল হল রাজ্য সরকার। সরকারি সিদ্ধান্ত অনুসারে এই Krishak Bandhu Scheme এর টাকা কত পাবেন আর কবে থেকে পাবেন কৃষকেরা, তা নিয়ে নিজের মতামত স্পষ্ট করেই জানিয়ে দিল সরকার।

সরকারি নিয়ম অনুসারে রাজ্যের কৃষকেরা তাদের জমিতে সারা বছর ধরে দুই ধরণের ফসলের চাষাবাদ করে থাকেন। আর এই খারিফ এবং রবি শস্যের চাষের সহায়তা হিসেবে Krishak Bandhu Scheme অনুসারে 2টি কিস্তিতে মোট 4-10 হাজার টাকা পর্যন্ত সরকারি সাহায্য পেয়ে থাকেন রাজ্যের কৃষকেরা। এই টাকা ইতিমধ্যেই কৃষকদের একাউন্টে ধকা শুরু করেছে। আপনি কি পেয়েছেন এই Krishak Bandhu Scheme এর টাকা! এই প্রকল্পে রয়েছে 2 লক্ষ টাকার একটি বীমাও।

Ads

বলা হয়েছে, কোন চাষির 60 বছরের আগে মৃত্যু হলে তার একাউন্টের সাথে যুক্ত নমিনি পাবেন Krishak Bandhu Scheme অনুসারে এককালীন 2 লক্ষ টাকা। সারা রাজ্য জুড়ে এই কৃষক বন্ধু প্রকল্পের মাধ্যমে সর্বমোট গত জুনের খারিফ মরসুমে 79 লক্ষ কৃষকদের দেওয়া হয়েছে মোট 2 হাজার 486 কোটি টাকা। গত বছরের ডিসেম্বরেই কৃষকদের দেওয়া হয়েছে। তবে এবারে এই রভি মরশুমের কিস্তির টাকা ঢোকা শুরু হয়েছে কৃষকদের ব্যাংকে।

Advertisement

নতুন ভোটার লিস্টে লক্ষ লক্ষ নাম বাতিল! কাদের নাম কেটে গেল, মিলিয়ে দেখুন।

তবে অনেকের একাউন্টে ঢোকে নি এই Krishak Bandhu প্রকল্পের টাকা। তার কারণ হিসেবে জানা যাচ্ছে, অনেকের একাউন্ট টাকা লেনদেন না করার ফলে হয়ে আছে ডরম্যান্ট। সেই সকল একাউন্টে দীর্ঘদিন টাকা জমা তোলা করা না করার কারণে হয়ে আছে সাময়িক নিস্ক্রিয়। ঐ সকল একাউন্ট সক্রিয় করলে তারাও পেয়ে যাবে এই টাকা।

Advertisement

টাকা পেলেন কিনা জানতে যেতে হবে নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট তথা krishakbandhu.net নামক ওয়েবসাইটে। সেখানে প্রয়োজনীয় ঘরগুলি পূরণের মাধ্যমে জানা যাবে স্ট্যাটাস। সেক্ষেত্রে প্রয়োজন হবে নিজের পরিচয় পত্রের নম্বর। এছাড়া নিজের একাউন্ট নাম্বার চেক করলেও জানা যাবে এই সংক্রান্ত তথ্য।

Ads

একটির বেশি ব্যাংক একাউন্ট থাকলেই চরম বিপদ, RBI এর নতুন নিয়ম জেনে নিন।

Krishak Bandhu Scheme ছাড়াও এমন আরও নানা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে যেমন সরকারি ও বেসরকারি নানা প্রকল্প, কিভাবে নিজের ব্যবসা বাড়াবেন, মোবাইলের রিচার্জে বাজারের সস্তা আর সেরা অফার, স্কুল, কলেজ নিয়ে দেখতে থাকুন আমাদের প্রতিবেদন। এছাড়া নিজের মতামত আমাদের জানান কমেন্ট বক্সে। ধন্যবাদ।
Written by Mukta Barai.

Advertisement
2 thoughts on “Krishak Bandhu প্রকল্পের টাকা নিয়ে সরকারের যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত! না দেখলে আপনার টাকার খোঁজই পাবেন না।”
  1. I was getting Rs.4000/- from Krishak Bandhu prakalpa for cultivable land of 0.24 acres at Kalimpong, but in this season of 2022 I couldn”t get the 1st instalment of Rs.2000/-, My bank account is operated in State Bank of India, Kalimpong Bazar Branch which is valid till now. So I would like to know when will my 1st instalment of prakalpa amount of Rs.2000/- be credited ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *