WB Govt Employees

রাজ্য সরকারি কর্মীদের পঞ্চম বেতন কমিশনের বকেয়া DA প্রাপ্তির ন্যায্য অধিকার অনুসারে প্রাপ্য দাবী প্রাপ্তির জন্য আন্দোলন করছেন WB Govt Employees – দের সংগঠন সংগ্রামী যৌথ মঞ্চ। ইতিমধ্যেই রাজ্যের জেলায় জেলায় গত ১০ই মার্চ তারিখে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিলেন তারা। এছাড়া সংগ্রামী যৌথ মঞ্চ থেকে বেশ কিছু সরকারি কর্মী অনশন করছেন, যা চতুর্থ সপ্তাহে পড়েছে। ইতিমধ্যেই রাজ্যের অভিভাবক হিসেবে মাননীয় রাজ্যপাল ছুটির দিনের আন্দোলনকারীদের সমস্যা নিয়ে আলোচনায় বসার ডাক দিয়েছেন। এই সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

Advertisement

রাজ্যের মাননীয় রাজ্যপালের সাথে বৈঠকে WB Govt Employees.

রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে বকেয়া ডিএ মেটানোর দাবি জানিয়ে রাজ্য সরকারি কর্মীরা (WB Govt Employees) ১০ মার্চ ধর্মঘট ডেকেছিল রাজ্যের সরকারি কর্মীদের সংগঠন, সংগ্রামী যৌথ মঞ্চ। সেদিন সারা রাজ্য জুড়ে প্রায় ৫ হাজার শিক্ষক-শিক্ষিকা স্কুলে গরহাজির ছিলেন বলেই জানা গেছে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে। তবে আরও একটি তথ্য বলছে যে, সংখ্যাটা ১ লক্ষের থেকে বেশি। তবে ওইদিন বনধ ভেস্তে দিতে বিশেষ কারণ ছাড়া অনুপস্থিত থাকলে কর্মীদের সার্ভিস ব্রেকের হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছিল নবান্ন।

সরকারের বিজ্ঞপ্তি জারির পরেও কেন এত সংখ্যক শিক্ষক-শিক্ষিকা গরহাজির ছিলেন, তা জানতে চেয়েছে রাজ্যের শিক্ষাদপ্তর। পাশাপাশি ‘নিয়মভঙ্গকারী’ শিক্ষক-শিক্ষিকার বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া যায়, তা নিয়েও রাজ্য সরকারের সঙ্গে ইতিমধ্যেই আলোচনাও শুরু করেছে শিক্ষা দপ্তর। এদিকে বকেয়া ডিএ চেয়ে রাজ্যের সরকারি কর্মচারীদের অনশন নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন রাজ্যপাল।

Ads

তিনি কর্মীদের অনশন ছেড়ে আলোচনায় বসার আহ্বান জানান। সবপক্ষকে আলোচনার টেবিলে বসে দ্রুত সমস্যা সমাধানের পরামর্শ সি ভি আনন্দ বোসের। রাজ্যপাল টুইট করে নিজের মত জানান। তারপর থেকেই স্বাভাবিকভাবেই সেই টুইট ঘিরে বঙ্গ রাজনীতিতে চর্চা তুঙ্গে। গত চার সপ্তাহ ধরে ধর্মতলার রাস্তায় বসে রিলে অনশন করছেন সরকারি কর্মচারীদের একাংশ।

Advertisement

আবার জ্বালানী তেলের মূল্যবৃদ্ধি, পাম্পে গিয়ে মাথায় হাত! আপনার এলাকায় নতুন দাম জেনে রাখুন।

বকেয়া ডিএ মেটাতে হবে, আন্দোলনকারী যৌথ মঞ্চের দাবি কেবল এই একটাই। এই দাবিতেই গতকাল ধর্মঘটও করেছে তারা। এই প্রেক্ষিতে রাজ্য সরকার দাবি করেছে, কেন্দ্র নাকি রাজ্যের বকেয়া মেটাচ্ছে না। এমনবস্থায় কর্মীদের বকেয়া ডিএ মেটানো সম্ভব নয়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রায় এক প্রকার হাত তুলে দিলেও নিজেদের অবস্থান থেকে একচুলও সরতে রাজি নন সরকারি কর্মচারীরা। এমন পরিস্থিতি কর্মীদের সাথে আলোচনায় বসে সমস্যা মেটানোর পরামর্শ দিলেন রাজ্যপাল।

Advertisement

আজ শনিবার দু’টি টুইট করেন রাজ্যপাল। আন্দোলনকারী WB Govt Employees – দের প্রতি সহানুভূতিশীল হয়ে তিনি লেখেন, “সরকারি কর্মচারীদের অনশন চতুর্থ সপ্তাহে পড়ছে, যা দেখে রাজ্য়পাল মর্মাহত। বিষয়টা হয়তো খুবই জটিল, কিন্তু সবসময় তার একটা সহজ সমাধান থাকে। আমাদের ভাইদের জীবনের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ আর কী হতে পারে!” এর কিছু পরেই দ্বিতীয় টুইটটি করেন তিনি। এই টুইটে সি ভি আনন্দ বোস লেখেন, “আন্দোলনকারী ভাইদের কাছে ভীষণই আবেগের বিষয় নিয়ে তাঁরা লড়াই করছে।”

Ads

ডিএ ধর্মঘট সফল না ব‍্যর্থ, পহেলা এপ্রিলের আগে কি সিদ্ধান্ত বদলাবে, ইঙ্গিত মিলল নবান্নের।

টুইট থেকে স্পষ্ট যে আন্দোলনকারী WB Govt Employees – দের অনশন ছেড়ে আলোচনায় বসার ডাক দিয়েছেন তিনি। আন্দোলনরত কর্মীদের ও রাজ্য সরকারকে একসাথে আলোচনায় বসে দ্রুত সমস্যা সমাধানের পরামর্শ দিয়েছেন রাজ্যপাল। এখন আদৌ রাজ্যপালের পরামর্শ মানা হবে কিনা, তা সময় বলবে।
Written by Parna Banerjee.

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *