KarmaSathi Prakalpa Scheme (কর্মসাথী প্রকল্প)

২০১১ সালে প্রথমবার মুখ্যমন্ত্রী পদে নির্বাচিত হবার পর থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একের পর এক জনকল্যাণমূলক কর্মসূচি (Karmasathi) গ্রহণ করার মাধ্যমে প্রমাণ করেছেন রাজ্যের জনগণ তার কতটা আপন। তার উদ্যোগে চালু করা বিভিন্ন জনমুখী প্রকল্পগুলির সংখ্যা এখনো পর্যন্ত ৭০ ছাড়িয়েছে। এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি হল স্বাস্থ্য সাথী, লক্ষ্মীর ভান্ডার, সবুজ সাথী, কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, ঐক্যশ্রী, কৃষক বন্ধু, স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড ও আরো অনেক।

Advertisement

Objective Of KarmaSathi Prakalpa Scheme

রাজ্যের লক্ষাধিক অসহায় মানুষ এই সমস্ত প্রকল্পগুলির মাধ্যমে সরকারের হরেক রকম সুবিধা ভোগ করে চলেছেন। এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার সিদ্ধান্ত নিল এরকমই আরো এক জনদরদী প্রকল্প (Karmasathi Prakalpa Scheme) সূচনা করার। সরকারি সূত্রে খবর পাওয়া গেছে নতুন ঘোষণা করা এই প্রকল্পের আওতায় নাকি রাজ্যের খেটে খাওয়া শ্রমিক শ্রেণীর মানুষদের মোটা অংকের টাকা আর্থিক সাহায্য দিতে চলেছে সরকার কর্তৃপক্ষ।

Details Of KarmaSathi Prakalpa Scheme

রাজ্যের যেকোনো অসহায় শ্রমিক শ্রেণীর মানুষ এই সুবিধা (Karmasathi) লাভ করতে পারেন বলে জানা গেছে। শুধু তার জন্য দরকার সঠিকভাবে নিজের আবেদন পত্র সরকারের কাছে জমা করা। এবার চলুন বিস্তারিতভাবে দেখে নেওয়া যাক এই প্রকল্পের যাবতীয় বিষয় সম্পর্কে।

Ads

অতিমারি শুরু হওয়ার পর থেকে পশ্চিমবঙ্গ থেকে ভিনরাজ্যে যাওয়া সকল পরিযায়ী শ্রমিকদের (Karmasathi) দিকে বিশেষভাবে খেয়াল রাখতে শুরু করেছে রাজ্য সরকার। এই সমস্ত শ্রমিক শ্রেণীর মানুষেরা কাজের প্রয়োজনে অন্য রাজ্যে গিয়ে জীবন যাপন করে, কিন্তু সেখানে তারা কষ্ট করে দুঃখের সঙ্গে বেঁচে থাকে। সেখানে কোন বিপদ আপদ ঘটলেও তাদের কেউ দেখার নেই বা নেই কেউ যত্ন করার। যেমন অনেক পরিযায়ী শ্রমিকেরাই কোন না কোন ভাবে আহত হয় এমনকি মৃত্যু পর্যন্ত ঘটে তাদের বাইরে থাকাকালীন।

Advertisement

Benefits Of KarmaSathi Prakalpa

তাই সেই সমস্ত মানুষদের কথা চিন্তা করে এবার রাজ্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে (Karmasathi) তাদের পাশে দাঁড়ানোর। এখন থেকে প্রত্যেক পরিযায়ী শ্রমিক যারা পশ্চিমবঙ্গের বাইরে ভিন্ন রাজ্যে কাজের প্রয়োজনে যাবেন তাদেরকে ন্যূনতম ৫০ হাজার থেকে ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বীমার সুবিধা দেবে রাজ্য সরকার। তারা যদি কোন ভাবে আহত হয় তাহলে তাদের চিকিৎসা চালানোর জন্য অথবা যদি তাদের মৃত্যু ঘটে তাহলে তাদের পরিবারের কল্যাণের জন্য সেই বিমার টাকা ব্যবহার করা যাবে।

Advertisement
Electricity Bill Payment online (বিদ্যুৎ বিল জমা)

Incentives Under The Scheme

এছাড়া ভিন রাজ্যে যদি কোন পরিযায়ী শ্রমিকের মৃত্যু হয় তার মৃতদেহ এই রাজ্যে নিয়ে আসার জন্য অতিরিক্ত ২৫ হাজার টাকা এবং সেই মৃতদেহ সৎকারের জন্য তার পরিবারকে আরো ৩ হাজার টাকার সুবিধা প্রদান করবে রাজ্য সরকার। কিন্তু কিভাবে আবেদন করা যাবে এই সুবিধা পাওয়ার জন্য? সকলেই নিশ্চয়ই জানতে আগ্রহী।

Ads

আরও পড়ুন, কৃষকদের জন্য বড় আপডেট! কৃষক বন্ধু প্রকল্পে পুজোর আগেই 10000 টাকা দিচ্ছে সরকার।

Procedure To Apply For Karama Sathi Prakalpa Scheme 2023

১ সেপ্টেম্বর থেকে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন স্থানে শুরু হয়ে গিয়েছে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প। এবারের ক্যাম্প দুটি পর্যায়ে হবে। প্রথম পর্যায়টি চলবে ১ সেপ্টেম্বর থেকে ১৬ই সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এবং দ্বিতীয়টি চলবে ১৮ই সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। ক্যাম্প চলাকালীন যেকোন দিন গিয়েই ইচ্ছুক এবং যোগ্য প্রার্থীরা আবেদন জানাতে পারেন এই সুবিধা গ্রহণের জন্য। তাদেরকে শুধুমাত্র প্রয়োজনীয় নথিপত্র সঙ্গে করে নিয়ে যেতে হবে এবং সেখানে যে আবেদন পত্রটি দেওয়া হবে সেটিকে সঠিকভাবে পূরণ করে তার সঙ্গে সমস্ত নথিপত্র একত্রিত করে জমা করতে হবে ক্যাম্পেই।

আরও পড়ুন, পুজোর আগে মাথাপিছু 10 হাজার টাকা করে দেবে রাজ্য সরকার। কিভাবে পাবেন জেনে নিন।

তাহলেই আবেদন প্রক্রিয়া শেষ। এরপর সরকারের তরফে যোগ্য প্রার্থীদের নাম বাছাই করে তাদের নথিভুক্তকরণ করা হবে বীমা প্রকল্পের আওতায়। সেই বীমার টাকা যখন প্রয়োজন তখনই প্রত্যাহার করা যেতে পারে ব্যাংকে গিয়ে।
Written by Nabadip Saha.

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *