HS Exam - উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা

আর মাত্র এক দিন পরেই শুরু উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা তথা WBCHSE HS Exam. আগামী ১৬ই ফেব্রুয়ারী থেকে রাজ্য জুড়ে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। আগামী ২৪সে ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত চলবে এই পরীক্ষা। আর পরীক্ষা শুরুর দুই দিন আগেই উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ পরীক্ষার নিরাপত্তা নিয়ে এক গুচ্ছ নির্দেশিকা জারি করলো। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা যাতে সুষ্ঠ ভাবে হয়, সেই কারণে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে সংসদ।

Advertisement

A Special Code Should be Write in WBBHSE HS Exam

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের ২ তারিখ থেকে শুরু হয়েছিল মাধ্যমিক পরীক্ষা। যা চলছে ১২ই ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত। এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে একাধিক কড়া পদক্ষেপ নিয়েছিল সংসদ। প্রশ্ন ফাঁস রুখতে প্রশ্ন পত্রে ব্যবহার করা হয়েছিল বিশেষত কিউআর কোড। যদিও প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানো যায়নি। তবে কোডের মাধ্যমে প্রশ্ন ফাঁসকারীকে ধরা গিয়েছে। উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদও সেই পথেই হাটলো।

প্রশ্ন ফাঁস রুখতে এবং পরীক্ষা সুষ্ঠ ও নিরাপদ ভাবে পরিচালনা করার জন্য নেওয়া হয়েছে একাধিক পদক্ষেপ। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা বা HS Exam শুরুর শেষে মুহূর্তে প্রশ্ন পত্রে বিরাট পরিবর্তন আনা হলো। আনা হলো এক বিশেষ নিয়ম। এই বিশেষ নিয়ম ফলো করেই উত্তর লিখতে হবে পরীক্ষার্থীদের। নয়তো বাতিল হতে পারে খাতা। প্রশ্ন ফাঁস রুখতে উচ্চ মাধ্যমিকের প্রশ্ন পত্রে ইউনিক কোড ব্যবহার করা হয়েছে।

Ads

মাধ্যমিক পরীক্ষায় এইভাবে খাতা সাজালে পাওয়া যাবে আরও বেশি নম্বর।

মাধ্যমিকের মতো এটি ঠিক কিউআর কোড নয়। উচ্চ মাধ্যমিকের (HS Exam) প্রশ্ন পত্রে যে ইউনিক কোড ব্যবহার করা হবে, তা প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর জন্য আলাদা আলাদা হবে। উত্তর পত্রে রোল নম্বর, রেজিস্ট্রেশন নম্বর লেখার পাশাপাশি প্রশ্ন পত্রে থাকা ইউনিক কোডটিও লিখতে হবে। এটি না লিখলে বাতিল হবে পরীক্ষা। কোনো পরীক্ষার্থী প্রশ্ন ফাঁস করলে এই ইউনিক কোড দ্বারা খুব সহজেই প্রশ্ন ফাঁসকারীকে চিহ্নিত করা যাবে।

Advertisement
Madhyamik Routine 2025 - মাধ্যমিক রুটিন ২০২৫

এছাড়াও HS Exam স্বচ্ছ ভাবে পরিচালনা করার জন্য আরও একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে শিক্ষা সংসদ। পরীক্ষা কেন্দ্রের মধ্যে কোনো পরীক্ষার্থী যাতে অনৈতিক উপায় অবলম্বন করতে না পারে, সে জন্য বিশেষ প্রযুক্তি লাগানো হবে হল গুলিতে। যে সমস্ত শিক্ষকরা গার্ডের দায়িত্বে থাকবেন, তারা যাতে গাফিলতি বা ফাঁকি না দেয় সে দিকেও নজর রাখা হবে। পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে ও ভেন্যু সুপারভাইজারের অফিসে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানোর নির্দেশ দিয়েছে সংসদ।

Advertisement

আবেদন করলেই মাসে 3000 টাকা পাবেন। শুরু হলো প্রধানমন্ত্রী স্কলারশিপে অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া।

ভেন্যু সুপারভাইজারের অফিস থেকেই পরীক্ষার (HS Exam) প্রশ্ন ও উত্তর বিতরণ করা হয় এবং এখানেই পরীক্ষার পর উত্তর পত্র জমা করা হয়। তাই এবারে ভেন্যু সুপারভাইজারের অফিস সিসিটিভিতে মুড়ে ফেললার সিধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি এই সিসিটিভির ফুটেজ ২৮শে মার্চ পর্যন্ত সংরক্ষণ করে রাখতে হবে। ফলে এবারে ভেন্যু সুপারভাইজারদের দায়িত্ব অনেকটাই বাড়লো।

Ads
Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *