রেশন দোকানে জমা দিতে হবে রেশন কার্ড। আগে নিয়ম কানুন জেনে নিন।

জমা দিতে হবে রেশন কার্ড, কি জানাচ্ছে সরকার?

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে একাধিক ডিজিটাল মিডিয়ায় রেশন কার্ড নিয়ে একাধিক গুজবের খবর ছড়িয়েছে বলে অভিযোগ। যার জেরে বিভ্রান্তি বাড়ছে, এবং জনগন দিশেহারা হয়ে যাচ্ছেন, কোনটি সঠিক, এটা ভেবে। তাই সঠিক জেনে নিন্যে সিদ্ধান্ত নিন।

Advertisement

ইন্টারনেটের জামানায়, এই সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজবের খবর (Social Media Fake News) নিমেষের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায়। মানুষের মধ্যে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। আর সঙ্গে সঙ্গে মানুষ আশঙ্কিত হয়ে পড়েন। ঠিক এমনই ঘটনা ঘটেছে রেশনকার্ড গ্রাহকদের নিয়ে। যাদের Ration Card রয়েছে, নিয়মিত রেশনে খাদ্যশস্য সংগ্রহ করেন, তাদের এক্ষুনি এই খবরটি সম্বন্ধে বিস্তারিত জেনে নেওয়া প্রয়োজন।

Fake News about Ration Card

তার কারণ, ইদানিং ডিজিটাল মিডিয়ার একাংশে এবং বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি খবর ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে বলা হচ্ছে, যাদের রেশন কার্ড (Ration Card), রয়েছে, তাদের অতি শীঘ্রই সমস্ত কার্ড জমা দিয়ে দিতে হবে। পাশাপাশি, কার্ড জমা দিতে দেরি করলে একটা মোটা অংকের টাকা জরিমানা করা হবে। স্বাভাবিকভাবেই কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্য সরকার রেশন কার্ডের মাধ্যমে মানুষদের খাদ্যশস্য সরবরাহ করে থাকে। এর ফলে রেশন কার্ডধারীরা উপকৃত হন।

Ads

এবার যখন এই ধরনের খবর ছড়িয়ে পড়ে, স্বাভাবিকভাবেই মানুষের মধ্যে আশঙ্কা শুরু হয়েছে। এই খবরের খোঁজ নিতে গিয়ে জানা গেল, কার্ড জমা দেওয়া এবং জরিমানা করার খবরটি সম্পূর্ণ একটা গুজব। এই খবরের কোনো ভিত্তি নেই। একাধিক রাজ্য সরকারের তরফে রাজ্যের সমস্ত মানুষকে আশ্বস্ত করে জানানো হয়েছে, কোনো রেশন কার্ড জমা দিতে বলা হচ্ছে না।

Advertisement
Dear Lottery Tips in Bangla (লটারি জেতার উপায়)

পাশাপাশি, জরিমানা করার কথাও বলা হয়নি। এটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন খবর এবং সম্পূর্ণ গুজব। জালিয়াতি ও ভুয়ো খবর ছড়ানোর চক্রান্ত মাত্র। রাজ্য খাদ্য দপ্তরের কমিশনার জানিয়েছেন, যারা এই ধরনের গুজব ছড়িয়েছে তাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। যদিও এই খবর সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ায়, অনেকেই রেশন দোকানে তাদের কার্ড নিয়ে ছুটছেন, এবং স্বভাবতই অস্বস্তিতে পড়ছেন, রেশন ডিলার ও অযথা হয়রানি হচ্ছে গ্রাহকদের।

Advertisement

আরও পড়ুন, বাংলার সাধারণ জনগনের মুখে হাসি ফুটলো, রাজ্য সরকারের বিরাট ঘোষণা।

তবে একাধিক রাজ্য সরকারের খাদ্য দপ্তরের তরফে জানানো হয়েছে, স্বাভাবিক নিয়মে যদি কোনো ব্যক্তির কাছে অতিরিক্ত কোনো রেশন কার্ড থাকে তাহলে তাকে জমা দিতে বলা হয়। এটি একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। কিন্তু কারো কাছে ভ্যালিড রেশন কার্ড থাকলে তা জমা দিতে বলা হচ্ছে না। আর এই খবর টিকে বিক্রিত করেই গুজব রটানোর চক্রান্ত চলছে।

Ads

আরও পড়ুন, বাংলার নতুন প্রকল্প, আবেদন করলেই পাবেন নগদ 10000 টাকা।

যাদের সঠিক ও যোগ্য Ration Card রয়েছে, তারা নিয়মিত রেশনে খাদ্যশস্য পাবেন। এদিকে পশ্চিমবঙ্গে রেশন আধার ও মোবাইল নম্বর লিংক, এবং উত্তর প্রদেশ সহ একাধিক রাজ্যে রেশন কার্ডের যাচাইকরনের প্রক্রিয়া শুরু করা হচ্ছে। যাদের কাছে ভ্যালিড কার্ড রয়েছে তাদের চিন্তার কোনো কারণ নেই। আর সরকারের এই ঘোষণার পরে সেই রাজ্যের রেশন কার্ডধারীরা আশ্বস্ত হয়েছেন।

এই বিষয়ে কোনও প্রশ্ন থাকলে নিচে কমেন্টে জানাতে পারেন। এবং সরকারি ঘোষণা ছাড়া এই ধরনের খবরে বিভ্রান্ত না হওয়ার পরামর্শ রইলো।
নিয়মিত সঠিক খবর পেতে সুখবর বাংলা ফলো করুন।

সুখবর বাংলা

Leave a Comment

Advertisement